বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বিশ্বনেতাদের ভাবনা - opinion -

শেখ মুজিবকে নিয়ে বিশ্ব নেতাদের ভাবনা


বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ৯২০ সালের ১৭ মার্চ গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়ার সম্ভ্রান্ত এক মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।বাঙালি জাতির অধিকার আদায়ে আজীবন লড়াই করা অবিসংবাদিত এই নেতা ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন, ১৯৫৪ সালের যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন, ১৯৫৮ সালের সামরিক শাসন বিরোধী আন্দোলন, ১৯৬৬ সালের ৬-দফা আন্দোলন, ১৯৬৬ সালের ১১ দফা আন্দোলন, ১৯৬৯ সালে গণঅভ্যুত্থান ১৯৭০ সালের সাধারণ নির্বাচন এবং ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধ এবং বাঙালির যা কিছু অর্জন সবই তার হাত ধরে। বাংলার ইতিহাস ও তাকে মূল্যায়ন করে জাতির পিতার আসনে অধিষ্ঠিত করেছে।

এক সাগর রক্ত, ত্রিশ লক্ষ শহীদের আত্নত্যাগ, দুই লক্ষ মা-বোনার সম্ভ্রমে অর্জিত ছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইলের যুদ্ধ বিধ্বস্ত স্বাধীন বাংলাদেশকে যখন বঙ্গবন্ধু যখন একটি শুন্য তলাবিহীন ঝুড়ির দেশকে শিক্ষ,শামরিক শক্তি,স্বাস্থ,যোগাযোগ,কৃষি ক্ষেত্রে বিভিন্ন কর্মসুচি গ্রহণ করে অর্থনৈতিক মুক্তি অর্জনে কাজ শুরু করলেন,ঠিক সেই মুহূর্তে একাত্তরের পরাজিত শক্তি ও কায়েমী স্বার্থান্বেষী মহল তাঁর বিরুদ্ধে ঘৃণ্য ষড়যন্ত্র শুরু করে এবং এই ষড়যন্ত্রেরই অংশ হিসেবে কতিপয় বিপথগামী সেনা কর্মকর্তার হাতে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট সহ পরিবারে শাহাদাত বরণ করেন।সদ্য স্বাধীন দেশে নেমে আসে অন্ধকার,তৈরি হয় রাজনৈতিক শূণ্যতা, ব্যাহত হয় গণতান্ত্রিক উন্নয়নের ধারা।

বাঙালি জাতির পিতার বিয়োগান্তক প্রস্থানে বাংলাদেশের মত বহির্বিশ্বেও শোকের ছায়া নেমে আসে।তার মিত্যুর পরবর্তীতে বাঙালি জাতির এই নেতাকে স্মরণ করে বিশ্ব বিখ্যাত ব্যক্তিরা নানা উক্তি করেন।সেই উক্তিগুলি নিয়ে আজকের আয়োজনঃ

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বিশ্ব নেতাদের উক্তি :

★১৯৭৫ সালের ১৫ ই আগস্টের মর্মান্তিক সংবাদে জানাতে গিয়ে বিশ্বখ্যাত মিডিয়া বিবিসি বলেছিল, "শেখ মুজিবকে তার নিজের সেনাবাহিনী মেরেছিল কিন্তু পাকিস্তানিরা তাকে হত্যা করতে নারাজ ছিল।"

কিউবার বিপ্লবী নেতা প্রয়াত ফিদেল ক্যাস্ট্রো জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হিমালয়ের সঙ্গে তুলনা বলেছিলেন ‘আমি হিমালয়কে দেখেনি, তবে শেখ মুজিবকে দেখেছি। ব্যক্তিত্ব ও সাহসে এই মানুষটি ছিলেন হিমালয় সমান। সুতরাং হিমালয় দেখার অভিজ্ঞতা আমি লাভ করেছি।

★ নোবেল বিজয়ী উইলিবান্ত বলেছেন,
"মুজিব হত্যার পরে বাঙ্গালীদের আর বিশ্বাস করা যায় না। যারা মুজিবকে হত্যা করেছিল তারা জঘন্য কিছু করতে পারে।"

★ইরাকের সাবেক ইরাকি রাষ্ট্রপতি সাদ্দাম হুসেন বলেছেন, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সমাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে প্রথম শহীদ। সে কারণেই তিনি অমর। '

★ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী বলেছিলেন, ‘শেখ মুজিব নিহত হওয়ার খবরে আমি মর্মাহত। তিনি একজন মহান নেতা ছিলেন। তাঁর অনন্য সাধারণ সাহসিকতা এশিয়া ও আফ্রিকার জনগণের জন্য প্রেরণাদায়ক ছিল।’

★ ভিয়েতনামের মুক্তিকামি নেতা কেনেথা কাউণ্ডা বলেছিলেন, “ স্বাধীনতা প্রশ্নে শেখ মুজিবুর রহমান ভিয়েতনামী জনগনকে অনুপ্রাণিত করেছিলেন ”

★শ্রীলংকার সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী লক্ষ্মণ কাদির গামা বাংলাদেশের এই মহান নেতা সম্পর্কে মূল্যায়ন করতে গিয়ে বলেছিলেন, ‘‘দক্ষিণ এশিয়া গত কয়েক শতকে বিশ্বকে অনেক শিক্ষক, দার্শনিক, দক্ষ রাষ্ট্রনায়ক, রাজনৈতিক নেতা ও যোদ্ধা উপহার দিয়েছে। কিন্তু শেখ মুজিবুর রহমান সবকিছুকে ছাপিয়ে যান, তাঁর স্থান নির্ধারিত হয়ে আছে সর্বকালের সর্বোচ্চ আসনে।’’

★ভারতের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায় ২০১৩ সালের ৪ মার্চ ধানমন্ডির ৩২ নম্বর সড়কে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন শেষে মন্তব্য বইয়ে লিখেছিলেন,‘‘বঙ্গবন্ধু ছিলেন জনগণের নেতা এবং তাদের সেবায় সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকার করেছেন। তাকে দেয়া বঙ্গবন্ধু খেতাবে এই দেশপ্রেমিক নেতার প্রতি দেশের মানুষের গভীর ভালবাসা প্রতিফলিত হয়।’’


★জার্মানীর সাবেক প্রেসিডেন্ট ক্রিস্টিয়ান উলফ, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন শেষে বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে লিখেছিলেন, ‘‘এই স্মৃতি জাদুঘর আমাদের একজন মহান রাষ্ট্রনায়ককে স্মরণ করিয়ে দেয়, যিনি তার জনগণের অধিকার ও মর্যাদার জন্য লড়াই করেছিলেন এবং অতিদ্রুত স্বাধীনতা ও জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ ছিলেন।’’

★ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন বলেছিলেন, ‘‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তাঁর সম্মোহনী এবং অসীম সাহসী নেতৃত্বের মাধ্যমে স্বাধীনতা যুদ্ধে তাঁর জনগণের নেতৃত্বদান করেছিলেন।’’

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি বলেছিলেন,‘সহিংস ও কাপুরুষোচিত ভাবে বাংলাদেশের জনগণের মাঝ থেকে এমন প্রতিভাবান ও সাহসী নেতৃত্বকে সরিয়ে দেওয়া কী যে মর্মান্তিক ঘটনা! তারপরও বাংলাদেশ এখন বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে এগিয়ে যাচ্ছে, তাঁরই কন্যার নেতৃত্বে। যুক্তরাষ্ট্র তাঁর সেই স্বপ্ন পূরণে বন্ধু ও সমর্থক হতে পেরে গর্ববোধ করে।’


পরিশেষে বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত এই নেতাকে নিয়ে পশ্চিম জার্মানির একটি পত্রিকার সাথে একমত পোষণ করে বলতে চাই ‘শেখ মুজিবকে চতুর্দশ লুইয়ের সাথে তুলনা করা যায়। জনগন তার কাছে এত প্রিয় ছিল যে লুইইয়ের মত তিনি এ দাবী করতে পারতেন আমি ই রাষ্ট্র।’

এনাম হোসেন 
সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক 
সিলেটি মহানগর শ্রমিকলীগ 
anamhossain01723@gmail.com

এ বিষয়ে আরও পড়ুন :

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ